ইনিংস হারের লজ্জা পেল আফ্রিকা

১৩৮ রানে নেই দক্ষিণ আফ্রিকার ৯ উইকেট। ইংল্যান্ডও জয় উদযাপনের প্রস্তুতি নিচ্ছিল। জয় ইংলিশরাই পেয়েছে, তবে অপেক্ষা করতে হয়েছে আরও ১২.১ ওভার। প্রোটিয়াদের ইনিংসের সবচেয়ে বড় জুটিটাই এসেছে শেষ উইকেটে। বাকিদের ব্যর্থতার দিনে ৯৯ রানের জুটি গড়ে একসময় ইনিংস হার এড়ানোর সম্ভাবনাও জাগিয়ে তোলেন কেশব মাহারাজ ও ড্যান পিটারসন। তাদের লড়াই শেষে ম্যাচটি এক ইনিংস ও ৫৩ রানের ব্যবধানে হেরেছে দক্ষিণ আফ্রিকা।

ফলোঅনে পড়ায় দ্বিতীয় ইনিংসে প্রোটিয়াদের আবারও ব্যাটিংয়ে পাঠায় ইংল্যান্ড। প্রথম ইনিংসের মতো এ ইনিংসেও ব্যর্থ হন ডিন এলগার-ফাফ ডু প্লেসিরা। ইংলিশ অধিনায়ক জো রুটের পার্টটাইম বোলিংয়ে অসহায় আত্মসমর্পণ করে প্রোটিয়া ব্যাটসম্যানরা। স্কোরবোর্ডে ৮৩ রান উঠতেই ৬ উইকেট হারায় তারা। এরপর ১৩৮ রানের মধ্যে হারায় ৯ উইকেট। শেষ উইকেট জুটিতে কেশব মাহারাজ ও পিটারসেন ৭৩ বলে ৯৯ রান যোগ করলে প্রোটিয়ারা অলআউট হয় ২৩৭ রানে। এটি শেষ উইকেটে প্রোটিয়াদের তৃতীয় সর্বোচ্চ জুটি। মাহারাজ ৭১ রান করে রান আউট হন। অন্যদিকে পিটারসন অপরাজিত থাকেন ৩৯ রানে। জো রুট একাই শিকার করেন ৪ উইকেট। মার্ক উড নেন ৩ উইকেট।

এর আগে, প্রথম দিন থেকেই পোর্ট এলিজাবেথ টেস্টের নিয়ন্ত্রণ রাখে ইংলিশরা। টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে বেন স্টোকস ও ওলি পোপের সেঞ্চুরিতে ৯ উইকেটে ৪৯৯ রান তুলে ইনিংস ঘোষণা করেন ইংলিশ অধিনায়ক জো রুট। বেন স্টোকস ১২০ রানে আউট হলেও ক্যারিয়ার সেরা ১৩৫ রানের ইনিংস খেলে অপরাজিত থাকেন পোপ। প্রোটিয়া বোলার কেশব মাহারাজ নেন ৫ উইকেট।

জবাবে নিজেদের প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে বিপর্যয়ে পড়ে স্বাগতিকরা। ডোমিনিক বেজ ও স্টুয়ার্ড ব্রডের বোলিং তোপে ২০৯ রানেই গুটিয়ে যায় তারা। প্রোটিয়াদের পক্ষে সর্বোচ্চ ৬৩ রান করেন কুইন্টন ডি কক। বেজ নেন ৫ উইকেট ও ব্রডের শিকার ৩ উইকেট।

সিরিজের প্রথম টেস্ট জিতে শুভ সূচনা করেছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। এরপর টানা দুই টেস্ট জিতে সিরিজে এগিয়ে গেল ইংলিশরা। ২৪ জানুয়ারি জোহন্সবার্গে  সিরিজের শেষ টেস্ট খেলতে নামে দুই দল।

আজকের বাজার/আরিফ