ইরানে ৬.৩ মাত্রার ভূমিকম্প, আহত ৫০০

ইরানের পশ্চিমাঞ্চলীয় কেরমানশাহ প্রদেশে ৬ দশমিক ৩ মাত্রার এক শক্তিশালী ভূমিকম্পে অন্তত ৫০০ মানুষ আহত হয়েছে।

স্থানীয় সময় রোববার (২৫ নভেম্বর) সন্ধ্যা ৭টা ২০ মিনিটে এ ভূমিকম্প আঘাত হানে। খবর- পার্সটুডের।

মার্কিন ভূতাত্ত্বিক জরিপ (ইউএসজিএস) বলেছে, রোববার রাতের এ ভূমিকম্পের কেন্দ্রস্থল ছিল ভূপৃষ্ঠ থেকে ১০ কিলোমিটার গভীরে। তারা জানাচ্ছে, ভূমিকম্পটি এতোটাই শক্তিশালী ছিল যে, তা ইরাকের রাজধানী বাগদাদসহ কুয়েত এবং ইসরায়েলেও অনুভূত হয়েছে।

তেহরান বিশ্ববিদ্যালয়ের জিওফিজিক্স ইনস্টিটিউট জানিয়েছে, কেরমানশাহ প্রদেশের ‘সারপোলে জাহাব’ শহর থেকে ১৭ কিলোমিটার পশ্চিমে এ ভূমিকম্প আঘাত হানে। তারা জানায়, রিখটার স্কেলে ভূমিকম্পের মাত্রা ছিল ৬ দশমিক ৪। তারা বলছে, শক্তিশালী ওই ভূমিকম্পের পর আরও বেশ কয়েকটি ভূকম্পন অনুভূত হয়েছে, যেগুলোর মধ্যে সর্বোচ্চ মাত্রা ছিল ৫ দশমিক ২।

ভূমিকম্প কেরমানশাহ প্রদেশের প্রায় সব স্থানের পাশাপাশি প্রতিবেশী ইলাম, পূর্ব আজারবাইজান ও পশ্চিম আজারবাইজান প্রদেশে অনুভূত হয়েছে।

ইরানের রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি দুর্গত অঞ্চলে উদ্ধার ও ত্রাণ তৎপরতা শুরু করেছে। এদিকে আবারও ভূমিকম্প আঘাত হানতে পারে এমন আশঙ্কায় কেরমানশাহ প্রদেশের মানুষজন সারারাত ঘরের বাইরে কাটিয়েছেন। প্রচণ্ড ঠাণ্ডা উপেক্ষা করে তারা রাস্তা ও পার্কে অবস্থান করেন।

কেরমানশাহ প্রদেশের ডেপুটি গভর্নর জেনারেল বলেছেন, হাসপাতালে শত শত মানুষের চিকিৎসা চলছে। আহত এসব মানুষের বেশিরভাগ সারপোলে জাহাব ও গিলানে গার্ব শহরের অধিবাসী।

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের ১২ নভেম্বর এই কেরমানশাহ প্রদেশেই ৭ দশমিক ৩ মাত্রার শক্তিশালী ভূমিকম্প আঘাত হেনেছিল। ওই ভূমিকম্পে ৬২০ জন নিহত ও অন্তত ১২ হাজার মানুষ আহত হন। ওই ভূমিকম্পেও সারপোলে জাহাব শহর সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল।