পৃথক দুর্ঘটনায় টাঙ্গাইলে নিহত ৪

জেলায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় ৪ জন নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় অনন্ত ৫ জন আহত হয়েছে।
শনিবার ভোরে জেলার কালিহাতী, মির্জাপুর ও ধনবাড়ী উপজেলায় এসব সড়ক দুর্ঘটনা ঘটেছে।
বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব থানার এসআই কবিরুল হক বলেন, হতাহতরা চাপাইনবাবগঞ্জ থেকে একটি মাইক্রোবাস নিয়ে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হয়। পথিমধ্যে তারা টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কের সল্লা এলাকায় পৌঁছুলে বিপরীত দিক থেকে আসা উত্তরবঙ্গগামী একটি ট্রাকের সাথে মুখোমুখি সংর্ঘষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই মাইক্রোবাসের ২ জন নিহত এবং ৫ জন আহত হয়। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আহতদের উদ্ধার করে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নিহতদের লাশ উদ্ধার করে বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব থানায় রাখা হয়েছে।
অপরদিকে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের মির্জাপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় আব্দুস সামাদ খান (৬০) নামে এক কাঠ ব্যবসায়ী নিহত হয়েছে।
আজ ভোরে পৌর এলাকার বাওয়ার কুমারজানি গ্রামের মা সিএনজি স্টেশনের সামনে এ দুর্ঘটনাটি ঘটেছে। স্থানীয়রা জানায়, আব্দুস সামাদ মা সিএনজি স্টেশন থেকে বাড়ি যাওয়ার পথে মহাসড়ক পার হওয়ার সময় ঢাকা থেকে উত্তরবঙ্গগামী একটি বাস তাকে চাপা দেয়। এ সময় স্থানীয় লোকজন উদ্ধার করে মির্জাপুর কুমুদিনী হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
টাঙ্গাইলের ধনবাড়ীতে সড়ক দুর্ঘটনায় আমিনুল ইসলাম (২৯) নামের আরেকজন নিহত হয়েছে।
আজ ভোরে উপজেলার নলহড়া নামকস্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটেছে। নিহত আমিনুল ইসলাম ওরিয়ন ওষুধ কোম্পানির বিক্রয় প্রতিনিধি হিসাবে ধনবাড়ী উপজেলায় কর্মরত ছিলেন। তার বাড়ি জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলার ইমলামপুর গ্রামের আব্দুল হালিমের ছেলে।
ধনবাড়ী থানার এসআই ফরহাদ আলী ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, জামালপুর থেকে ছেড়ে আসা ধনবাড়ীগামী একটি ট্রাক নলহড়ায় যাত্রীবাহী অটোরিক্সাকে চাপা দিলে অটোরিক্সার যাত্রী আমিনুল ইসলাম ঘটনাস্থলেই নিহত হন।