সাহেলে অপহৃত ফরাসি সাংবাদিক ও মার্কিন ত্রাণ কর্মীর মুক্তি লাভ

জিহাদিদের হাতে অপহৃত এক ফরাসি সাংবাদিক ও এক মার্কিন ত্রাণ কর্মী মুক্তি পাওয়ার পর সোমবার নাইজারের রাজধানী নিয়ামিতে পৌঁছেছেন। এ সাংবাদিক প্রায় দুই বছর এবং ত্রাণ কর্মী ছয় বছর ধরে তাদের হাতে বন্দি ছিলেন। খবর এএফপি’র।
ফরাসি ফ্রিল্যান্সার অলিসিভয়ার ডুবোইস এবং আমেরিকান ত্রাণ কর্মী জেফরি উডকে নিয়ে বিমানটি নাইজারের রাজধানী নিয়ামিতে অবতরণ করে।
খবরে বলা হয়, ৪৮ বছর বয়সী ডুবোইসকে ২০২১ সালের এপ্রিলে মালি থেকে অপহরণ করা হয়েছিল এবং উডকে ২০১৬ সালের অক্টোবরে নাইজার থেকে নিখোঁজ হয়েছিলেন।
হাসলেও দৃশ্যত আতঙ্কিত কণ্ঠে ডুবোইস বলেন, ‘আমি ক্লান্ত বোধ করলেও ভাল আছি।’
বিষয়টির সাথে পরিচিত সূত্র জানায়, মঙ্গলবার ডুসেবাইসের প্যারিসে ফেরার আশা করা হয়েছিল।
তিনি সাংবাদিকদের একটি ছোট দলের সাথে কথা বলাতে গিয়ে বলেন, ‘এখানে থাকা, মুক্ত হওয়া আমার জন্য আশ্চর্যজনক।’
‘আমি এই গুরুত্বপূর্ণ মিশনে নাইজারের দক্ষতার জন্য এবং ফ্রান্সের প্রতি শ্রদ্ধা চাই। সেই সাথে যারা আমাকে আজ এখানে থাকতে সাহায্য করেছে তাদের সকলের প্রতি আমি শ্রদ্ধা জানাই।’
এ সময় উডকে তার পাশে ছিলেন।
তিনি নাইজেরিয়ান, আমেরিকান এবং ফরাসি সরকারকে ধন্যবাদ জানান।
নিয়ামি থেকে প্রায় ৩৫০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমের তাহুয়া অঞ্চলের আবলাকে অবস্থিত তার বাড়ি থেকে বন্দুকের মুখে তাকে অপহরণ করা হয়েছিল।
এক ওয়েবসাইটের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, ৬১ বছর বয়সী উডকে নাইজারে ৩২ বছর ধরে একজন ধর্ম প্রচারক এবং মানবিক সহায়তা কর্মী হিসেবে কাজ করেন।
ডুবোইসের সাথে কথা বলার পর দেয়া এক বিবৃতিতে ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাঁক্রো তার ‘অতি স্বস্তির’ কথা প্রকাশ করে বলেন, এ সাংবাদিক খুব শিগগিরই ফ্রান্সে ফিরে আসবেন।
এদিকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন উডকে মুক্ত করাকে স্বাগত জানিয়ে নাইজার সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।